বাসর রাত খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি রাত।

 মানুষের জীবনে এটি একটি স্মরণীয় রাত।

 এই রাতে দুটি অচেনা অজানা মানুষ একত্রিত হয়ে আল্লাহ তায়ালার নিকট নিজেদের জন্য, নিজেদের পরিবারের জন্য প্রার্থনা করে। 

একে অপরের সাথে পরিচিত হয়।


একটি ছেলে যখন বিবাহ করার জন্য উপযুক্ত হয় তখন সে একটি দ্বীনদার মেয়েকে বিবাহ করে।

এবং এরপরে ছেলে ও মেয়েটির  জীবনে আসে বাসর রাত অর্থাৎ ১ম রাত তাদের।

 এই প্রথম রাতে অনেক মানুষ ই অবহেলা করে নষ্ট করে দেয় বা কাটিয়ে দেয় কিন্তু এই রাতটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি রাত।


এই রাতে যখন দুটি অচেনা মন, অচেনা মানুষ একত্রিত হয়।

তখন তাদের করনীয় হলো, সৃ‌ষ্টিকর্তার নিকট দোয়া করা যাতে তাদের জীবনে সুখ আসে, যেন তাদের পরিবারে শান্তি আসে, যেন তাদের দাম্পত্য জীবন শান্তিপূর্ন হয়, 

যেন তাদের মধ্যে কোনোদিও বিচ্ছেদ না ঘটে, যেন তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটলেও সেটা তাদের দুজনের মঙ্গলের জন্য ঘটে। 

আল্লাহর নিকটে এসব প্রার্থনা করার প্রয়োজন আছে?



নিশ্চয়ই আছে।

 একজন মুসলমান হিসেবে অবশ্যই আপনি বাসর রাতে স্ত্রীকে নিয়ে প্রথমে দুই রাকাত নামাজ জামাতে আদায় করবেন এবং নামাজ শেষে দোয়া পড়বেন।

 দোয়াটি হলোঃ

 আল্লাহুম্মা বা-রিক লি ফি আহলি ওয়া বা-রিক লাহুম ফিইয়্যা, আল্লাহুম্মাঝ্‌মা’ বাইনানা মা জামা‘তা বিখাইরিন ওয়া ফাররিক্ব বাইনানা ইজা ফাররাক্বতা ইলা খাইরিন। (আদাবুয যিফাফ, মুসান্নাফে আবদুর রাজ্জাক)

  অর্থঃ

 ‘হে আল্লাহ! আমার জন্য আমার পরিবারে বরকত দান কর এবং তাদের স্বার্থে আমার মাঝে বরকত দাও। 

হে আল্লাহ! তুমি যা ভাল একত্রিত করেছ তা আমাদের মাঝে একত্রিত কর।

 আর যখন কল্যাণের দিকে বিচ্ছেদ কর তখন আমাদের মাঝে বিচ্ছেদ কর’।

Share To:

Post A Comment:

0 comments so far,add yours