Breaking News:
আমাদের সাইটে আপনাকে স্বাগতম।

কবরের আজাব থেকে বাঁচার জন্য দোয়া

মানুষ এ পৃথিবীতে একদমই স্বাধীন।

এ পৃথিবীতে আমি আপনি যদি সৃ‌ষ্টিকর্তার হুকুম না মানি তাহলে আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে সাথে সাথেই শাস্তি দিবেনা।

 এ দুনিয়ার আদালত হলো কেউ যদি ডাকাতি করে তাহলে সাথে সাথে তাকে শাস্তি দেওয়া হয়। 

কিন্তু দেখুন আমার আপনার মহান রাব্বুল আলামিনের কতো দয়া তিনি কিন্তু আমাদেরকে সাথে সাথে শাস্তি দেননা।

আমরা এত্তো এত্তো খারাপ কাজ করি এর যদি সাথে সাথে বিচার করতেন আল্লাহ তায়ালা তাহলে হয়তো আমরা এতোদিন বেচে থাকতে পারতাম নাহ। 


কারন হলো মনে করুন আজ আমি নামাজ পড়লাম না।

 এর জন্য আল্লাহ তায়ালা যদি তার প্রাকৃতিক অক্সিজেন বন্ধছকরে দেন আমার জন্য তাহলে আমার পক্ষে সম্ভব হবেনা অক্সিজেনের বোতল কিনে শ্বাসপ্রশ্বাস চালানো। তার মানে অক্সিজেন ছাড়া মারা যাবো। 


আমাদের এখন সাথে সাথে বিচার করছেনা তাই বলে যে আমাদের বিচার হবেনা তা নয় কিন্তু।

 আমাদের সকল কাজের হিসাব নিবেন আল্লাহ তায়ালা। আমাদের কৃতকর্মের ফল আমাদেরকেই ভোগ করতে হবে। 

আমাদের সামান্য গুনাহ ও কিন্তু আমাদের কর্মের খাতার লিস্টে থাকবে আর সেই সামান্য গুনাহর জন্য ও কিন্তু শাস্তি দেওয়া হবে আমাদেরকে।  

কখনো কি হিসেব করে দেখেছেন যে, আমরা প্রতিদিন কতো ছোট বড় গুনাহ করি তার হিসেব নেই।

 সেই গুনাহগুলোর জন্য যদি শাস্তি দেওয়া হয় তাহলে আমরা কতো হাজার হাজার বছর ধরে শাস্তিতে থাকতে হবে। 

এই আযাব থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য একটি দোয়া রয়েছে যা পড়লে কবরের আযাব থেকে মুক্তি পেতে পারেন।



 এ দোয়াটি হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণনা করেছেন।

উচ্চারণঃ

 আল্লাহুম্মা ইন্নি আ’উজুবিকা মিন আ’জাবিল ক্বাবরি, ওয়া মিন আ’জাবি জাহান্নাম,

 ওয়া মিন ফিতনাতিল মাহ’ইয়া-ওয়াল্ মামাতি, ওয়া মিং সাররি ফিতনাতিল্ মাসীহিদ্-দাজ্জাল।

অর্থঃ

হে আল্লাহ! 

তুমি আমাকে কাবরের আজাব থেকে রক্ষা করো; আমাকে জাহান্নামের আজাব। 

 এবং দুনিয়ার ফেতনা ও মৃত্যুর ফেতনা এবং দাজ্জালের ফেতনা থেকে রক্ষা করো।


রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কবরের আজাব থেকে বাঁচার জন্য,

নামাজের শেষ বৈঠকে তাশাহহুদ ও দরূদের পরে সালাম ফিরানোর আগে এই দোয়াটি পড়তে বলেছেন।


(বিদ্রঃ) আমার জানামতে সালাম ফিরানো প্রযন্ত যাবতীয় কার্যকলাপ নামাজের মধ্যে পড়ে।

সুতরাং এখানে নামাজের মধ্যে পড়তে বলেছে দোয়াটি। এই দোয়াটি জাগোনিউজ টোয়েন্টিফোরে দেখে নিজের মতো করে পোস্ট লিখি।

 আপনারা সালাম ফিরানোর পরে দোয়াটি পড়তে পারেন তাতেই মনে হয় ভালো হবে। 

নাহয় কোনো আলেমের কাজে জেনে আমলটি করবেন।

0/Post a Comment/Comments